1. admin@bbcnews24.news : admin :
সখিপুর হাসপাতাল পরিচালনায় ডাঃ আব্দুস সোবহানের প্রশংসনীয় ভূমিকা ~ BBC NEWS 24
শুক্রবার, ০৬ অগাস্ট ২০২১, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
উখিয়া থানা পুলিশের অভিযানে ইয়াবা সহ মাদক কারবারি গ্রেফতার ছাত্রলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম আকাশের উদ্দ্যোগে ফ্রি ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু নগরীতে নগদ টাকা, তাসের প্যাকেট, ভ্যানগাড়ি সহ গ্রেপ্তার ৭ প্রেমিক ও প্রেমিকা মিলে অপর প্রেমিক শাহ আলমের হত্যার সাড়ে ৪ বছর পর হত্যার রহস্য উদঘাটন কুষ্টিয়া মিরপুরে মাইক্রোবাস ও সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-২, আহত-৩ সিআরবি ইস্যুতে নাপসা-বাংলাদেশ’র মানববন্ধন নান্দাইলে শহীদ ক্যাপ্টন শেখ কামাল এর ৭২ তম জম্মবার্ষিকী উপলক্ষে বৃক্ষ রোপন কিশোরগঞ্জে শহীদ শেখ কামালের ৭২তম জন্মশত বার্ষিকী পালিত কেশবপুর পৌরসভার উদ্যোগে ডেঙ্গুসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা কেশবপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহীদ শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী পালিত

সখিপুর হাসপাতাল পরিচালনায় ডাঃ আব্দুস সোবহানের প্রশংসনীয় ভূমিকা

বিবিসি নিউজ ২৪ ডেস্ক
  • সময় : সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১
  • ৫১ বার পঠিত

সখিপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ আজ সোমবার (১৯ জুলাই) সকালে সখিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে রোগীদের করোনা কালীন সেবার বিষয়ে ও হাসপাতাল পরিচালনার সার্বিক বিষয়ে ডাঃ মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান এর সাথে বিস্তারিত কথা হয়। হাসৌজ্জল ভাবে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান চিকিৎসা সেবার সার্বিক বিষয়ে কথা বলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান বলেন, আমরা উপজেলার সাধারন রোগীদের স্বাস্থ্য সেবায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বেশ কিছু কার্যক্রম পরিচালনা করছি। যাতে সাধারন রোগীরা হয়রানির শিকার না হয়, আমাদের হাসপাতাল থেকে সঠিক ও সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা পায়।

তার ধারাবাহিকতায় এবং সখিপুর হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট সকলের সুপরামর্শে আমরা করোনা ওয়ার্ড, করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরী করে পুরুষ, মহিলা ও শিশু ওয়ার্ড আলাদা করে দিয়েছেন। তিনি এ পর্যন্ত ৭টি অক্সিজেন কনসেনটেটরের ব্যবস্থা করেছেন, যা করোনা রোগীদের অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে কাজে লাগবে। প্রতি দিন ৩-৪ জন করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি আছে এবং অনেক করোনা রোগীর চিকিৎসা প্রদান করেছেন। হাসপাতাল থেকে রোগীগন পর্যাপ্ত ওষুধ পাচ্ছেন। তিনি ফ্লু কর্ণারের ব্যবস্থা করেছেন, যেখানে ঠান্ডা-কাশি ও জরের রোগীরা সহজে চিকিৎসা নিতে পারছেন।

তিনি আরো জানান, কোভিড- ১৯ ভ্যাকসিনের কার্যক্রম সুন্দর পরিবেশে ব্যবস্থা করেছেন যাতে টিকা গ্রহণকারীরা সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে টিকা নিতে পারছেন। প্রতিদিন প্রায় ৩ শতাধিক টিকাগ্রহণকারী টিকা নিচ্ছেন।

ডাঃ আব্দুস সোবহান অত্যন্ত দক্ষ হাতে হাসপাতাল পরিচালনা করায় সকল ডাক্তার,নার্স ও অন্যান্য কর্মচারীগণ আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে করোনা কালীন সময় নিজেদের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তবে প্রেষনে কয়েকজন ডাক্তার অন্যত্র কাজ করায় সখিপুরের রোগীরা তাদের কাছ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ওই ডাক্তার গণের প্রেষন বাতিল করে এবং গাইনী ডাক্তারসহ ৭/৮জন ডাক্তারের শুন্যপদ রয়েছে। এগুলো খুব দ্রুত পূরণ করতে পারলে দূর-দূরান্ত থেকে সখিপুর হাসপাতালে আসা রোগীদের আরো ভাল সেবা দিতে পারবেন বলে তিনি জানান।

আজ পর্যন্ত সখিপুরে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ছয় শত। করোনায় গত ১ দিনে টাঙ্গাইল জেলায় ১০১৯ জনের পরীক্ষায় ২৫৪ জনের করোনা সনাক্ত। আক্রান্তের হার ২৪.৯৩% । আজ সখিপুরে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ জন। এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১২জন। তবে এতদিন সখিপুর আক্রান্তের হার বেশ কম ছিল।

আজকের আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হওয়াতে খুবই চিন্তায় পড়ে গেছেন স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুস সোবহানসহ চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত অন্যন্যরা।
লকডাউন ঊঠানোর পর থেকে মানুষের অবাধ বিচরণ, স্বাস্থ্য বিধি না মানা, মার্কেট গুলোতে প্রচন্ড ভিড় লেগে আছে। কাপড়ের দোকানে প্রবেশ করা যাচ্ছে না মানুষের ভিড়ে। ছোট বাচ্চাসহ এমন নির্ভয়ে মানুষ চলাচল করছে যাতে মনে হয় দেশে কোন কিছুই হয় নাই। গত দুদিনে গরুর হাটের দৃশ্য দেখে শংকিত না হয়ে পারা যায় না।

১০-১৫% মানুষের মুখে মাস্ক রয়েছে। বাকীরা স্বাস্থ্য বিধির কোন বালাই মানছেন না। মাস্ক পড়া ৩ ফুট দূরে থাকা এসবের কিছুই মানুষ মানছেন না। পরিণামে যা হওয়ার তাই হবে। এই যে বাজার করা, গরু-ছাগল ক্রয় করা, কাপড়-চোপড় ক্রয় মানুষ একটুও ভাবে না যে আগে তো তার জীবন রক্ষা করতে হবে। তার পর বেচেঁ থাকলেই তো মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ করা যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, প্রায় দেড় বছর যাবত করোনা আক্রান্ত সাড়াবিশ্ব এবং আমাদের দেশ। এ দেশে দো দাড়ছে সকলই চলছে আগের মত। অথচ চোখের সামনে আমাদের নিকট আত্মীয়-স্বজন, কত চেনা মুখদের এই করোনায় আমরা হারিয়েছি,যার ক্ষতি অপূরনীয়। অবশ্য সকলে জানেন জীবন মৃত্যুর মালিক আল্লাহ। কিন্তু আল্লাহ তো জেনে শুনে মরতে বলেন নাই। যুগে যুগে যুগে যত বার এদেশে মহামারী এসেছে মানুষকে তো সাবধান থাকতে আল্লাহই শিখেয়েছেন। আল্লাহ ও রাসুল (সাঃ) সকল মহামারী থেকে বেচেঁ থাকার জন্য সাবধানতা অবলম্বন করার তাগিদ দিয়েছেন।

সখিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান তার চিকিৎসার সেবার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বলিষ্ঠ নেতৃত্বের মাধ্যমে করোনা কালীন সময়ে করোনা আক্রান্ত রোগীসহ সকল রোগীদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রদানে সব সময় সেবা দিয়ে যাচ্ছে সখিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। নিঃসন্দেহে যা প্রশংসার দাবীদার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ বিবিসি নিউজ ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD